প্রেস রিলিজ

বিজ্ঞানে নারী ও মেয়ে বিষয়ক আন্তর্জাতিক দিবস উপলক্ষে জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেসের বাণী

১১ ফেব্রুয়ারী ২০২২

বিজ্ঞানে নারী ও মেয়েদের এই আন্তর্জাতিক দিবসে, আমি সবাইকে এমন একটি পরিবেশ তৈরি করার আহ্বান জানাই যেখানে নারীরা তাদের প্রকৃত সম্ভাবনা উপলব্ধি করতে পারে এবং আজকের মেয়েরা আগামী দিনের নেতৃস্থানীয় বিজ্ঞানী এবং উদ্ভাবক হয়ে ওঠে, এবং সবার জন্য একটি সুন্দর এবং টেকসই ভবিষ্যত গঠন করে।

বর্তমানে বিশ্বে, তিনজন বিজ্ঞান ও প্রকৌশল গবেষকের মধ্যে মাত্র একজন নারী।

কাঠামোগত এবং সামাজিক প্রতিবন্ধকতা নারী ও মেয়েদের বিজ্ঞানে প্রবেশ ও অগ্রসর হতে বাধা দেয়।

কোভিড-১৯ মহামারী স্কুল বন্ধ হওয়া থেকে শুরু করে সহিংসতা বৃদ্ধি এবং বাড়িতে যত্ন নেয়া একটি বৃহত্তর বোঝা হওয়া সহ জেন্ডার অসমতাকে আরও বাড়িয়েছে।

এই বৈষম্য আমাদের বিশ্বকে বিপুল ব্যবহারযোগ্য প্রতিভা এবং উদ্ভাবন থেকে বঞ্চিত করছে। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি যে সকলের জন্য কাজ করে তা নিশ্চিত করতে আমাদের নারীর দৃষ্টিভঙ্গি প্রয়োজন।

আমরা পারি এবং অবশ্যই পদক্ষেপ গ্রহণ করতে পারি।

প্রযুক্তি, পদার্থবিদ্যা, প্রকৌশল, গণিতে অধ্যয়নরত মেয়েদের দিয়ে ক্লাসরুম ভর্তি করে এমন নীতির মাধ্যমে আমরা ব্যবস্থা নিতে পারি।

গবেষণাগার, গবেষণা প্রতিষ্ঠান এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে নারীদের বৃদ্ধি ও নেতৃত্ব দেওয়ার সুযোগ নিশ্চিত করার লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে ব্যবস্থা গ্রহন করতে পারি।

বিজ্ঞানে নারীদের উপস্থিতি সম্পর্কিত বৈষম্য এবং গতানুগতিকা পরিসমাপ্তির সংকল্প আমরা নিতে পারি।

এবং সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের নারী সদস্যদের সুযোগ বাড়ানোর জন্য আরও কঠোর প্রচেষ্টার ব্যবস্থা নিতে পারি।

এই সবই কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার অত্যন্ত প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ।

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা প্রযুক্তিতে নিম্ন স্তরে কাজ করা নারীদের এবং অযৌক্তিক জেন্ডার পক্ষপাতদুষ্ট গাণিতীক পরিভাষাগুলো যা পুরুষদেরকে আদর্শ হিসাবে এবং মহিলাদেরকে ব্যতিক্রম হিসাবে বিবেচনা করে।

আমাদের কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার বিকাশে আরও নারীদের প্রয়োজন যাতে তারা সকলের সেবা এবং জেন্ডার সমতার জন্য কাজ করে।

আমাদের সেই প্রবণতাগুলিকেও উল্টাতে হবে যা তরুণ নারী বিজ্ঞানীদের পেশায় এগিয়ে যেতে বিরত রাখে এবং যাতে করে আমাদের জলবায়ু এবং পরিবেশগত সংকট মোকাবেলায় সহায়তা করে।

আমি ইঞ্জিনিয়ারিং পড়াতাম। আমি ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে জানি যে, তরুণ নারী এবং পুরুষরা সমানভাবে সক্ষম এবং সমানভাবে বিজ্ঞানের প্রতি মুগ্ধ, ধারণায় ভরপুর এবং আমাদের বিশ্বকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত।

আমাদের অবশ্যই নিশ্চিত করতে হবে যে তাদের একই সমান শিক্ষায় এবং সমান স্তরে কাজের সুযোগ রয়েছে।

বিজ্ঞানে নারী ও মেয়েদের এই আন্তর্জাতিক দিবসে, আমি সবাইকে এমন একটি পরিবেশ তৈরি করার আহ্বান জানাই যেখানে নারীরা তাদের প্রকৃত সম্ভাবনা উপলব্ধি করতে পারে এবং আজকের মেয়েরা আগামী দিনের নেতৃস্থানীয় বিজ্ঞানী এবং উদ্ভাবক হয়ে ওঠে, এবং সবার জন্য একটি সুন্দর এবং টেকসই ভবিষ্যত গঠন করে।

বিজ্ঞানে নারী ও মেয়ে বিষয়ক আন্তর্জাতিক দিবস উপলক্ষে জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেসের বাণী

এই উদ্যোগে জাতিসংঘের যে সকল সংস্থা যুক্ত

জাতিসংঘ
জাতিসংঘ- বিবরণ

এই উদ্যোগের মাধ্যমে আমরা যে অভীষ্টগুলোকে সমর্থন দিচ্ছি